ঢাকারবিবার , ১৪ নভেম্বর ২০২১
  • অন্যান্য
আজকের সর্বশেষ সবখবর

অতিরিক্ত বাস ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে ছাত্রলীগের স্মারকলিপি

দৈনিক বাংলাদেশ জনপদ
নভেম্বর ১৪, ২০২১ ৭:১৯ অপরাহ্ণ । ৪৭ জন
Link Copied!
একাত্তর পোস্ট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বাদল সাহা, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি :-

অতিরিক্ত বাস ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে ও বাসা ভাড়া কমানোর দাবীতে জেলা প্রমাসক বরাবর স্মারকলিপি দেয়া হয়েছে। গোপালগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ এ স্মারকিলিপি দেয়।

আজ রবিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে জেলা প্রশাসকের কায্যালয়ে জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানার হাতে এ স্মারকলিপি তুলে দেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিউটন মোল্যা ও সাধারন সম্পাদক আতাউর রহমান পিয়াল। এসময় ছাত্রলীগের অন্যান্য নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিউটন মোল্যা ও সাধারন সম্পাদক আতাউর রহমান পিয়াল স্বাক্ষরিত ওই স্মারকলিপিতে বলা হয়, ১৯৪৮ সালের ৪ঠা জানুয়ারী থেকে আজ অবধি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সকল জনসাধারনের ন্যায্য দাবী আদায়ে অগ্রনী ভূমিকা পালন করে আসছে।

সম্প্রতি সারা বিশ্বে জ্বালনি তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়া বাংলাদেশ সরকার ডিজেল তেলের দাম প্রতি লিটারে ১৫ টাকা বৃদ্ধি করেছে, সেই সাথে গাড়ী ভাড়া প্রতি কিলোমিটারে ১ টাকা ৮০ পয়সা হারে নির্ধারন করে দিয়েছেন।

কিন্তু, গোপালগঞ্জ টু গুলিস্থান রুটে সেই নিয়ম অমান্য করে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে আসছে বাস মালিকরা। গোপালগঞ্জ থেকে ঢাকার দূরত্ব ১৪৯ কিলোমিটার। সেই হিসাবে বাস ভাড়া আসে ২৬৮ টাকা ২০ পয়সা। কিন্তু পরিবহন মালিক সমিতি বাস ভাড়া নির্ধারন করেছে ৪৮০ টাকা। প্রতিদিন প্রায় এক হাজার যাত্রী গোপালগঞ্জ থেকে ঢাকায় যাতায়েত করেন। সবচেয়ে আবাক করার বিষয় হচ্ছে গোপালগঞ্জ থেকে গাবতলী রুটে অনেক পথ বেশি হওয়া স্বত্ত্বেও ৫’শ টাকা ভাড়া করা হয়েছে। ২০১৮ সালে কোন কারন ছাড়াই ৩’শ থেকে ৩৫০ টাকা এবং ২০১৯ সালে ৩৫০ টাকার স্থলে ৪’শ টাকা ভাড়া নির্ধারন করে। গোপালগঞ্জ জেলার কিছু বাস মালিকের কারসাজিতে সরকারী নিয়ম ভঙ্গ করে বেআইনীভাবে ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে। এসব অসাধু বাস মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার পাশাপশি সরকার নির্ধারিত আনুয়ায়ী ভাড়া আদায়ের ব্যবস্থা করা দাবী জানানো হয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক যাত্রী বলেন, তেলের দাম বাড়ার আগে গোপালগঞ্জ থেকে ঢাকার ভাড়া ছিল ৪৫০ টাকা। কিন্তু তেলের দাম বাড়ার পর থেকে এখন ৪৮০ টাকা করে ভাড়া নেয়া হচ্ছে। প্রতি টিকিটে ৩০ টাকা করে ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে।

মো: ওবাযদুল মেখ অভি বলেন, অনেক ছাত্রছাত্রী দুরদূরান্ত থকে স্কুল কলেজে যাতায়েত করে। গোপালগঞ্জের প্রত্যেক রুটে লোকাল বাসে ছাত্র-ছাত্রীদের হাফ ভাড়া নিশ্চিত করার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ করছি।

গোপালগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিউটন মোল্যা বলেন, তেলে দাম বৃদ্ধির পর সরকার যে ভাড়া নির্ধারন করে দিয়েছে তাতে গোপালগঞ্জ থেকে ঢাকার ভাড়া হবে মাত্র ২৬৯ টাকা। কিন্তু এর স্থলে নেয়া হচ্ছে ৪৮০ টাকা করে। এতে একজন যাত্রীর অতিরিক্ত ২১১ টাকা দিতে হচ্ছে। ছাত্রলীগ সব সময় জনগনের অধিকার আদায়ে কাজ করেছে। সেই কারনে আমরা অতিরিক্ত থাড়া নেয়া বন্ধের জন্য স্মারকলিপি দিয়েছি।

error: Content is protected !!