ঢাকাশনিবার , ৭ আগস্ট ২০২১
  • অন্যান্য
আজকের সর্বশেষ সবখবর

তজুমদ্দিন হাসপাতালে বিনা চিকিৎসায় নারীর মিত্যু

Admin
আগস্ট ৭, ২০২১ ২:২২ অপরাহ্ণ । ৪২ জন
Link Copied!
একাত্তর পোস্ট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিজাম উদ্দিন, তজুমদ্দিন প্রতিনিধি ( ভোলা)ঃ-

ভোলার তজুমদ্দিনে সদর হাসপাতালে অজ্ঞাত এক বৃদ্ধা নারী করোনার লক্ষণ নিয়ে বিনা চিকিৎসায় মারা গেছে। ৬ দিন হাসপাতালে ভর্তি থাকার পর অবশেষে শুক্রবার ভোর সাড়ে ৬টায় ওই নারীর মৃত্যু হয়। পুলিশ লাশের সুরতাহাল রিপোর্ট করে ময়না তদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেছেন।
হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে, গত ৩০ জুলাই দুপুরে অজ্ঞাত পরিচয় এক নারীকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় বাদলীপুর পাটওয়ারী বাড়ির সামনের রাস্তার পাশ থেকে কুড়িয়ে এনে হাসপাতালে ভর্তি করে সাবেক মেম্বার রাজিব হাওলাদার।
ছয়দিন জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে অজ্ঞান অবস্থায় হাসপাতালের পুরুষ ওয়ার্ডের বারান্দায় একটি অতিরিক্ত বেডে রাখা হয় ও-ই নারীকে। করোনার লক্ষণ দেখা গেলেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোভিড পরীক্ষা করেননি। সংজ্ঞা না ফেরাতে পেরে তাকে স্যালাইন ও অক্সিজেন সাপোর্ট এ রাখা হয়েছে।
পরে শুক্রবার ভোর সাড়ে ৬ টায় তিনি মারা যান।
পাশের বেডের একাধিক রোগী জানান, ওই নারী কোভিডের লক্ষণ থাকায় কোন ডাক্তার নার্স ভয়ে তাকে পর্যবেক্ষণ করতেন না। ঠিকমতো চিকিৎসা সেবাও নিশ্চিত করেননি। স্বজন না থাকায় তাকে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থাও করেননি কেউ।
উপজেলা রোগী কল্যাণ সমিতিও অসহায় এই নারীর চিকিৎসার ব্যবস্থা করেননি।
হাসপাতালের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ইউএইচও) ডাক্তার কবির সোহেল জানান, হাসপাতালে ভর্তির পর অজ্ঞাত হওয়ায় ইউএনও এবং সমাজকল্যাণ কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছে। কোন অভিভাবক না পাওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে পারিনি। শ্বাসকষ্ট থাকায় তাকে নিয়মিত অক্সিজেন সাপোর্টে রাখা হয়েছিল।
কিন্তু কোভিড পরীক্ষা না করার কারন সম্পর্কে তিনি কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।
অপরদিকে, হাসপাতালের আরএমও হাসান শরীফ জানান, তার করোনার লক্ষন ছিলোনা, তাই পরীক্ষা করা হয়নি। নিয়মিত তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছিলো।
সাবেক ইউপি সদস্য রাজীব হাওলাদার অভিযোগ করেন, ও-ই নারীকে রাস্তার পাশে পেয়ে আমি হাসপাতালে ভর্তি করি। পরে মাঝে মধ্যে খোজ খবর নিতাম, কোন স্বজন বা পরিচয় জানা যায় নি। এছাড়াও তার অভিযোগ, হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতি এধরনের রোগীদের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার কথা থাকলেও তারা করেনি। এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা মরিয়ম বেগম শুক্রবার সাড়ে ১২ টায় এ প্রতিনিধিকে জানান, হাসপাতালে অজ্ঞাত এক নারী ভর্তি আছে সেটা জানলেও তার মৃত্যুর সংবাদ জানিনা।

error: Content is protected !!