ঢাকারবিবার , ২৬ জুন ২০২২
  • অন্যান্য
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পদ্মা সেতু উদ্বোধনে নতুন সাজে কুয়াকাটা || হোটেল-মোটেলে ৫০ শতাংশ ডিসকাউন্ট

মো.নাহিদুল হক, কলাপাড়া (পটুয়াখালী)
জুন ২৬, ২০২২ ৩:৪৯ অপরাহ্ণ । ৫০ জন
Link Copied!
একাত্তর পোস্ট অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

পদ্মা সেতু উদ্বোধনকে ঘিরে পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটাকে সাজিয়ে তোলা হয়েছে নতুন সাজে। সৈকতে বসার বেঞ্চ ও ছাতায় এখন নতুনত্বের ছোঁয়া। প্রায় এক কিলোমিটার সড়ক পথ করা হয়ে আলোকসজ্জা।

কলাপাড়া কুয়াকাটা সড়ক পথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিভিন্ন পয়েন্টে শোভা পাচ্ছে বিশাল বিশাল তোরণ ব্যানার আর ফিস্টুন। এছাড়া পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে আগামী ১৫ দিনের জন্য হোটেল-মোটেলের রুম বুকিংয়ে ৫০ শতাংশ ডিসকাউন্ট সুবিধা দেয়া হয়েছে। একই সাথে সকল রেস্তোরাগুলোতেও থাকছে ২০ শতাংশ ছাড়। পদ্মা সেতু উদ্বোধনের ফলে কুয়াকাটায় কয়েকগুণ পর্যটক বেড়ে যাবে। ইতিমধ্যে হোটেল মোটেলের অনেক রুম বুকিং হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা।

স্থানীয় ব্যবসায়িরা জানান, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের ফলে ঢাকা-কুয়াকাটার দূরত্বটা কমে গেছে। মাত্র ৫-৬ ঘন্টায় পৌঁছানো যাবে। স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দেয়া এই পদ্মা সেতু, শুধুমাত্র জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার অবদান। এর সুফল ভোগ করবে গোটা দক্ষিণাঞ্চলের সাগর পারের মানুষ। আর সচল হবে অর্থনীতির চাকা।
এদিকে কুয়াকাটার দর্শনীয় স্থান নারিকেল কুঞ্জ, ইকোপার্ক, জাতীয় উদ্যান, শ্রীমঙ্গল বৌদ্ধবিহার, সীমা বৌদ্ধবিহার, সুন্দরবনের পূর্বাঞ্চল খ্যাত ফাতরার বনাঞ্চল, গঙ্গামতি, কাউয়ারচর, লেম্বুরচর, শুঁটকি পল্লীসহ সৈকতের জিরোপয়েন্ট থেকে পূর্ব ও পশ্চিমে মনোমুগ্ধকর সমুদ্রের সৈকতের বেলাভূমি, একাধিক নয়নাভিরাম লেক, সংরক্ষিত বনায়ন ও ইলিশ পার্ক যেন পর্যটকদের হাতছানি দিচ্ছে। হোটেল মোটেল কর্তৃপক্ষও ব্যাপক প্রস্ততি নিয়েছে। পর্যটকদের নিরাপত্তার স্বার্থে ট্যুরিস্ট পুলিশ ও  মহিপুর পুলিশের টহল জোরদার করা হয়েছে বলে জানান।

কুয়াকাটা হোটেল-মোটেল মালিক সমিতির সভাপতি শাহ-আলম হাওলাদার বলেন,পদ্মা সেতু উদ্বোধনকে ঘিরে  কুয়াকাটার সকল হোটেল মোটেল সুসজ্জায় সজ্জিত করা হয়েছে। এছাড়া হোটেল-মোটেল মালিক সমিতির পক্ষ থেকে আগামী ১৫ দিনের জন্য আবাসিক হোটেল গুলোতে নির্ধারিত ভাড়ার উপরে ৫০ শতাংশ ছাড় দেয়া হয়েছে।

কুয়াকাটা পৌর মেয়র আনোয়ার হাওলাদার বলেন,পদ্মা বহুমুখী সেতু উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে যুগান্তকারী সুচনার জন্ম দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। পর্যটন নগরীসহ কুয়াকাটা পৌরবাসীর মাঝে যেন আনন্দের সীমা নেই। পৌরসভার উদ্যোগে মহাসড়ক আলোক সজ্জাসহ বিভিন্ন সংগঠন তোরণ, ফেস্টুন ও ব্যানার টানিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

কুয়াকাটা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র আঃ বারেক মোল্লা বলেন, পদ্মা সেতু চালুর ফলে দক্ষিনাঞ্চলের মানুষ সামাজিক, অর্থনৈতিকসহ সকল ক্ষেত্রে এগিয়ে যাবে। সব চেয়ে বেশি উপকৃত হবে পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটা তথা কলাপাড়া উপজেলাবাসী। এই রাজনীতিবীদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।

error: Content is protected !!